• ঢাকা
  • বুধবার , ২২ মে , ২০২৪
Logo

খেজুর খাওয়ার উপকারিতা সম্পর্কে হাদিসে যা বলা হয়েছে

Admin প্রকাশিত: বৃহস্পতিবার , ৫ জানুয়ারী , ২০২৩

শেয়ার করুনঃ
খেজুর খাওয়ার উপকারিতা সম্পর্কে হাদিসে যা বলা হয়েছে

খেজুর একটি পুষ্টিগুণ সমৃদ্ধ ফল। পাশাপাশি বিভিন্ন রোগের প্রতিষেধকও রয়েছে এতে। নিয়মিত খেজুর খাওয়ার অনেক উপকারিতা রয়েছে। রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের একাধিক বর্ণনায় খেজুর খাওয়ার উপকারিতার কথা উঠে এসেছে।

আয়েশা (রা.) থেকে বর্ণিত হাদিসে রাসুল (স.) বলেন, ‘মদিনার উচ্চভূমিতে উৎপন্ন আজওয়া খেজুরের মধ্যে রোগের নিরাময় রয়েছে। আর প্রথম ভোরে তা আহার করা বিষের প্রতিষেধক।’ (মুসলিম: ৫১৬৮; সিলসিলাতুস সহিহাহ: ৩৫৩৯) ADVERTISEMENT হজরত সাদ (রা.) বলেন, ‘আমি রাসুলুল্লাহ (স.) বলতে শুনেছি, ‘যে ব্যক্তি ভোরে সাতটি আজওয়া খেজুর খাবে, সেদিন কোনো বিষ ও যাদু-টোনা তার ক্ষতি করতে পারবে না।’ (বুখারি: ৫৪৪৫; মুসলিম: ২০৪৭-১৫৫; আবু দাউদ: ৩৮৭৬) আরেক হাদিসে সাদ (রা.) বর্ণনা করেন— একবার আমি অসুস্থ হলে রাসুল (সা.) আমাকে দেখতে আসেন। এ সময় তিনি তার হাত আমার বুকের ওপর রাখেন। আমি তার শীতলতা আমার হৃদয়ে অনুভব করি। এরপর তিনি বলেন, তুমি হৃদরোগে আক্রান্ত। কাজেই তুমি সাকিফ গোত্রের অধিবাসী হারিসা ইবনে কালদার কাছে যাও।

কেননা সে একজন অভিজ্ঞ চিকিৎসক। আর সে যেন মদিনার আজওয়া খেজুরের সাতটা খেজুর নিয়ে বিচিসহ চূর্ণ করে তোমার জন্য তা দিয়ে সাতটি বড়ি তৈরি করে দেয়। (আবু দাউদ: ৩৮৩৫) ADVERTISEMENT আলি (রা.) বলেছেন, ‘যে ব্যক্তি সাতটি আজওয়া খেজুর প্রতিদিন আহার করে, তার পাকস্থলীর প্রতিটি রোগ নির্মূল হয়ে যায়।’ (কানজুল উম্মাল: ২৮৪৭২; অনেকে বর্ণনাটি দুর্বল বলেছেন) আনাস বিন মালেক (রা.) থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, ‘নবী (স.) নামাজের আগে কয়েকটি কাঁচা খেজুর খেয়ে ইফতার করতেন। যদি কাঁচা খেজুর না থাকত, তাহলে শুকনো খেজুর দিয়ে। যদি শুকনো খেজুরও না থাকত তাহলে কয়েক ঢোক পানি দিয়ে।’ (তিরমিজি; রোজা অধ্যায়: ৬৩২) সালমান ইবনে আমির (রা.) বর্ণিত হাদিসে রাসুলুল্লাহ (স.) বলেছেন—‘তোমাদের কেউ রোজা রাখলে খেজুর দিয়ে যেন ইফতার করে, খেজুর না হলে পানি দিয়ে; নিশ্চয় পানি পবিত্র‘। (আহমদ, তিরমিজি, আবু দাউদ, ইবনে মাজাহ ও দারেমি; আলফিয়্যাতুল হাদিস: ৫৬২, পৃষ্ঠা: ১৩১-১৩২) আবু হুরায়রা (রা.) বর্ণিত হাদিসে রাসুলুল্লাহ (স.) ইরশাদ করেছেন, ঈমানদার ব্যক্তির জন্য খেজুর দিয়ে সেহরি খাওয়া কতোই না উত্তম! (আবু দাউদ: ২৩৪৫) আবু হুরাইরা (রা.) বর্ণিত হাদিসে রাসুল (সা.) বলেছেন, ‘আজওয়া জান্নাতের, এতে বিষক্রিয়ার প্রতিষেধক রয়েছে...।’ (তিরমিজি, হাদিস : ২০৬৬)

চিকিৎসা বিজ্ঞানের মতে, খেজুর খেলে আরও বেশ কিছু উপকার রয়েছে। যেমন- এক. অল্পতেই ক্ষুধা নিবারণ হয়ে যাবে। কেননা খেজুর এমন একটি খাবার, যা অল্প হলেও ক্ষুধা নিবারণে দ্রুত কাজ করে। দুই. খেজুরে প্রচুর পরিমাণে ক্যালরি থাকে বিধায় ক্লান্তির শেষে খেজুর খাওয়া হলে দ্রুত দুর্বলতা কেটে যায়। তিন. খেজুর হৃদরোগ, জ্বর ও পেটের পীড়ায় উপকারী এবং বলবর্ধক ওষুধ হিসেবে কাজ করে। রোজাদারের ক্ষুধামন্দা ও কোষ্ঠকাঠিন্য দূরীকরণে খেজুর বিশেষ উপকারী। চার. খেজুর পেটের গ্যাস, শ্লেষ্মা, কফ দূর করে, শুষ্ক কাশি এবং অ্যাজমায় উপকারী।

Admin
শেয়ার করুনঃ

এই বিভাগের আরোও খবর

  • আধুনিক চাষাবাদে জাকিরের সাফল্য
    আধুনিক চাষাবাদে জাকিরের সাফল্য
  • আল্লাহর ওপর ভরসা করলে যে পুরস্কার পাবেন
    আল্লাহর ওপর ভরসা করলে যে পুরস্কার পাবেন
  • সেনেগালে ১ লাখ ২০ হাজার কপি কোরআন বিতরণ সৌদি আরবের
    সেনেগালে ১ লাখ ২০ হাজার কপি কোরআন বিতরণ সৌদি আরবের
  • সন্ধ্যাবেলায় দোয়া করার গুরুত্ব
    সন্ধ্যাবেলায় দোয়া করার গুরুত্ব
  • আত্তাহিয়্যাতু কখন, কিভাবে পড়তে হয়
    আত্তাহিয়্যাতু কখন, কিভাবে পড়তে হয়
  • বর্ণাঢ্য আয়োজনে ইমামকে বিদায়, ১৫ লাখ টাকা সম্মাননা
    বর্ণাঢ্য আয়োজনে ইমামকে বিদায়, ১৫ লাখ টাকা সম্মাননা
Logo